কুষ্টিয়ায় স্ত্রীকে উত্ত্যক্ত করায় প্রতিবাদে চিকিৎসককে মারধর

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি: স্ত্রীকে উত্ত্যক্ত করার প্রতিবাদ করায় কুষ্টিয়া শহরের ঈদগাহ পাড়ায় বখাটের ইটের আঘাতে এক ইন্টার্নি চিকিৎসক আহত হয়েছেন। তাঁকে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আজ সোমবার বেলা আড়াইটার দিকে শহরের ঈদগাহ পাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ইন্টার্নি চিকিৎসকসহ কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের চিকিৎসকদের মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে।

কুষ্টিয়া মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) শেখ ওবায়দুল্লাহ বলেন, ‘ঘটনাটি পুলিশ সুপার (এসপি) এসএম মেহেদী হাসান সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে দেখছেন। বখাটেদের নাম পাওয়া গেছে। তাদের ধরতে গোয়েন্দা পুলিশসহ থানার একাধিক দল মাঠে কাজ করছে।’

আহত ইন্টার্নি চিকিৎসকের নাম হেলাল আহমেদ। তাঁর স্ত্রী মোহনা আফরোজ। তাঁদের দুজনকেই কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের চিকিৎসক কেবিনে ভর্তি করা হয়েছে। হেলাল ও মোহনা চীনে মেডিকেলে পড়াশোনা করে দেশে এসে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ইন্টার্নি করছেন।

হেলাল আহমেদ মুঠোফোনে রাতে বলেন, দুপুর দুইটার দিকে হাসপাতালে দায়িত্বপালন শেষে তাঁরা দুজন রিকশায় করে ঈদগাহপাড়ার বাসায় ফিরছিলেন। বাসা থেকে প্রায় ৫০ গজ দূরে রিকশা থেকে নেমে ভাড়া দেওয়ার সময় সেখানে অবস্থানরত চার যুবক মোহনাকে উদ্দেশ্যে করে আজেবাজে কথা বলে। একপর্যায়ে দুজন হেঁটে বাসায় যাওয়ার সময় আবারও তারা অশ্লীল কথা বলে। এতে রেগে মোহনা প্রতিবাদ করে। এর মধ্যে এক যুবক মোহনাকে থাপ্পড় মারে। এ সময় হেলাল যুবকদের প্রতিহত করার চেষ্টা করেন। ওই যুবকদের একজন ইট দিয়ে হেলালের মাথায় আঘাত করে।

কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগের চিকিৎসক এএসএম মুসা কবির বলেন, হেলালের মাথায় তিনটা সেলাই দেওয়া হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে পুলিশ সুপারের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে। বখাটেদের দ্রুত ধরা হবে বলে তিনি আশ্বাস দিয়েছেন।

(Visited 11 times, 1 visits today)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *