খোকসায় স্ত্রীকে কোদাল দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করলো স্বামী!

খোকসা প্রতিনিধি: দাম্পত্য কলহের জেরে স্বামী দেলোয়ার হোসেন আপন কোদাল দিয়ে নৃশংসভাবে হত্যা করে স্ত্রী শারমিন আক্তার ভানু (৩০) কে। ঘটনাটি ঘটেছে খোকসা পৌর শহরের চরপাড়া গ্রামে।

পুলিশ ও স্থানীয় বাসিন্দা কুষ্টিয়ার সময়কে জানান, বুধবার রাতের কোন এক সময় স্বামী-স্ত্রীর ঝগড়ার একপর্যায়ে স্বামী মোঃ দেলোয়ার হোসেন আপন কোদাল দিয়ে কুপিয়ে স্ত্রীকে নৃশংসভাবে হত্যা করে পালিয়ে গেছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ৬ বছর আগে ঢাকায় গার্মেন্সে কাজ করতে গিয়ে শারমিন আক্তার ভানুর সাথে সুনামগঞ্জ জেলার কান্দিরগঞ্জ গ্রামের মশক মিয়ার ছেলে দেলোয়ার হোসেন ওরফে আপনের সাথে বিয়ে হয়। ঢাকায় বিয়ে করে ভানু তার গ্রামের বাড়িতে এসে বাবার সম্পত্তিতে ঘর বেধে সংসার করতে থাকে। ভিনদেশী আপনের সংসারে প্রায়ই দাম্পত্য কলহ লেগেই থাকতো।

এরই জেরে বৃহস্পতিবার রাতে নিজের ব্যবহৃত ভ্যান বিক্রি করে ঋণের টাকা পরিশোধ করাকে কেন্দ্র করে ঝগড়ার এক পর্যায়ে কোদাল দিয়ে নৃশংসভাবে রান্নাঘরের পাশে মুখ বেধে গলা ও পা কেটে হত্যা করে পাষণ্ড স্বামী দেলোয়ার পালিয়ে যায়।

ভানুর পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, ৯ বছর আগে শারমিন আক্তার ভানুর ১ম স্বামী হিসাম আলী (৩০) বিষপানে আত্মহত্যা করে করে। প্রথম স্বামীর ঘরে তাদের ঝর্না নামের ৮ বছরের একটি কন্যা সন্তান আছে।

ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন খোকসা থানার অফিসার্স ইনচার্জ (ওসি) মোঃ বজলুর রহমান ও ওসি তদন্ত চাকলাদার আসাদুর রহমান।

এদিকে প্রাথমিক সুরতহাল শেষে লাশ ময়নাতদন্তে কুষ্টিয়া সদর হাসপাতালের পাঠানোর প্রক্রিয়া চলছিল। এ রিপোট লেখা পর্যন্ত মামলার তদন্তের কাজ চলছে বলে জানান খোকসা থানার ওসি মোঃ বজলুর রহমান।

তিনি কুষ্টিয়ার সময়কে বলেন, প্রাথমিক তদন্তে মনে হয়েছে পারিবারিক কলহের জের ধরেই এ হত্যাকাণ্ড করা হয়েছে। সুষ্ঠু তদন্ত করে দোষীকে আইনের আওতায় আনা হবে।

(Visited 11 times, 1 visits today)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *