৯২ বছর বয়সেও মিরপুরের দোলত আলী’র কপালে জোটেনি বয়স্ক ভাতার কার্ড!

কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার চিথলিয়া ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের মজলিশপুর গ্রামের মৃত ইমান আলী’র ছেলে মোঃ দোলত আলী জাতীয় পরিচয়পত্র অনুযায়ী তার জন্ম ১৯২৭ সালের ২৭শে অক্টোবর, বর্তমানে তাঁর বয়স প্রায় ৯২ বছর।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন বাস্তবে তার বয়স আরো বেশি হবে। বারবার নানা আশ্বাসের বাণী শুনিয়েছেন দেই দিচ্ছি হচ্ছে।

এই বৃদ্ধ আক্ষেপ করে বলেন, এখন আমি অসুস্থ, চলতে পারি না। যদি একটি বয়স্ক ভাতার কার্ড দেয়া হয়, তাহলে যতদিন বেঁচে থাকবো, কোন মতে চলতে পারব।

প্রায় ৯২ বছর বয়স হলেও হতদরিদ্র মোঃ দোলত আলী’র কপালে জোটেনি বয়স্ক ভাতার কার্ড। সরেজমিনে এই প্রতিবেদক গিয়ে দেখেন, বয়সের ভারে নুইয়ে পড়ে লাঠি ভর দিয়ে বেঁচে থাকার সংগ্রামে ছুটে চলেছেন মানুষের দ্বারে দ্বারে কিছুটা আর্থিক সাহায্যের জন্য। মোঃ দোলত আলীকে দেখে সাধারণ মানুষের দয়া হলেও দয়া হয়নি স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের। বয়ষ্ক ভাতার কার্ড পেয়েছেন কিনা জানতে চাইলে, দোলত আলী উল্টো প্রশ্ন করে বলেন, কবে পাব বয়স্ক ভাতার কার্ড?

স্থানীয় ১নং ওয়ার্ডের মেম্বার কাফের আলী জানান, তিনি খুব শিঘ্রই দোলত আলীকে বয়স্কভাতার কার্ড করে দিবেন।

এ ব্যাপারে মিরপুর উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা সোহেল রানা বলেন, ইউনিয়ন পরিষদ থেকে যে তালিকা পাঠানো হয় তার ভিত্তিতেই আমরা কার্ড সরবরাহ করে থাকি। এর বাইরেও বয়স্ক ভাতা কার্ড পাওয়ার যোগ্য কেউ থাকে তাহলে আমি ব্যবস্থা করে দিবো। চিথলিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিন পিস্তুল জানান, বিষয়টি তার জানা ছিল না, আমি খোজ-খবর নিচ্ছি। তবে সত্যতা পেলে অবশ্যই বয়স্কভাতার কার্ডের ব্যবস্থা করা যেতে পারে।

কুষ্টিয়ার সময়-আ.আ.হ/মৃধা

বিজ্ঞাপন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *