কুষ্টিয়া জেলা বিএনপির সভাপতি ও সা:সম্পাদক পদ বহাল রেখে ১৫১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন

কুষ্টিয়া জেলা বিএনপির নতুন কমিটিতে সৈয়দ মেহেদী আহমেদ রুমী এবং সাধারণ সম্পাদক সোহরাব উদ্দিনকে বহাল রেখে তরুণদের বড় পদে দায়িত্ব দিয়ে ১৫১ সদস্যবিশিষ্ট কমিটি অনুমোদন হয়েছে। কমিটিতে জায়গা হয়নি জেলা যুবদলের সভাপতির। দলটির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মৌখিক নির্দেশে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের পরামর্শে কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-দপ্তর সম্পাদক তাইফুল ইসলাম টিপু স্বাক্ষরিত চিঠিতে জানানো হয়।

এই কমিটির সহ-সভাপতি রেজা আহমেদ বাচ্চু মোল্লা, অ্যাডঃ গিয়াস উদ্দিন মিয়া, বশিরুল আলম চাঁদ, আলাউদ্দিন, সৈয়দ আমজাদ আলী, অ্যাডঃ গোলাম মোহাম্মদ, আবদুল আজিজ খান, কুতুব উদ্দিন আহমেদ, রুহুল কুদ্দুস, মহসিন আলী ও লিয়াকত আলী, যুগ্ম সম্পাদক খন্দকার সাজেদুর রহমান বাবলু, তৌহিদুল ইসলাম আলম, মিরাজুল ইসলাম রিন্টু, প্রকৌশলী জাকির হোসেন সরকার, আব্দুর রাজ্জাক বাচ্চু, মহিউদ্দিন চৌধুরী মিলন, কাজল মজুমদার, এ কে বিশ্বাস বাবু ও মোজাফফর উজ্জামান মিন্টু, সাংগঠনিক সম্পাদক এ্যাড. শামিম উল হাসান অপু, আব্দুল মঈদ বাবুল ও খন্দকার সামসুজ্জাহিদ, কোষাধক্ষ্য জয়নাল আবেদীন প্রধান (সাধু), দপ্তর সম্পাদক অধ্যাপক শেহাব উদ্দিন, সহ-দপ্তর সম্পাদক হেলাল উদ্দিন, প্রচার সম্পাদক অধ্যাপক মনজুরুল আলম ডাবলু, সহ-প্রচার সম্পাদক খান এ করি অকুল, জাহাঙ্গীর হোসেন ও রফিকুল ইসলাম, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল হক, মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক হাবিবুর রহমান হবি,সহ মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক শফিকুর রহমান শফিক ও আবু দাউদ, আইন বিষয়ক সম্পাদক এ্যাড. আব্দুল মজিদ, সহ-আইন বিষয়ক সম্পাদক এ্যাড. ইকবাল হোসেন, এ্যাড. শাতিল মাহমুদ, এ্যাড. খাদেমুল ইসলাম, সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক গাজী গুলজার হোসেন, সহ-সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক হাসান আলী, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক সৈয়দা ফাহিমা রুমী, সহ-মহিলা বিষয়ক সম্পাদক লুৎফুন্নাহার এ্যানী, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক শফিউল আলম টিটু, কৃষি বিষয়ক সম্পাদক এস এম গোলাম কবির, ত্রাণ ও পূনর্বাসন বিষয়ক সম্পাদক জাবেদ আলী, সহ-ত্রাণ ও পূনর্বাসন বিষয়ক সম্পাদক অহিদুল ইসলাম সাবু, সমবায় ও পল্লী উন্নয়ন সম্পাদক এ্যাড. আব্দুল ওয়াদুদ মিয়া, তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক মীর আল আরেফীন বাবু, গ্রাম সরকার বিষয়ক সম্পাদক আলফাজ উদ্দিন, সহ-গ্রাম সরকার বিষয়ক সম্পাদক মামুনুর রশীদ মামুন, মানবসম্পদ উন্নয়ন বিষয়ক সম্পাদক হাফিজুর রহমান হাফিজ, ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক শওকত হাসান বুলবুল, সহ-ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক আব্দুস ছাত্তার রেন্টু, সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক ইমরান হোসেন সঞ্জু,যুব বিষয়ক সম্পাদক মেজবাউর রহমান পিন্টু, ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক কামাল উদ্দিন, সহ ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক মাহফুজুর রহমান মিথুন, শ্রমিক বিষয়ক সম্পাদক ছরোয়ার হোসেন, সহ-শ্রমিক বিষয়ক সম্পাদক মিজানুর রহমান রঞ্জু, প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক আতাউর রহমান মিঠু, স্বনির্ভর বিষয়ক সম্পাদক সেলিম উদ্দিন সেলিম, স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক লুৎফর রহমান লুৎফর, সহ-স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল হাকিম মাসুদ, গণশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম, বন ও পরিবেশ কল্যাণ সম্পাদক দুলাল উদ্দিন দুলাল, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ সম্পাদক ডাক্তার আতাহার হোসেন তারা,শিল্প বিষয়ক সম্পাদক ইসমাইল হোসেন মুরাদ, ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প বিষয়ক সম্পাদক জালাল উদ্দিন মোল্লা, অর্থনীতি বিষয়ক সম্পাদক কে এম আলম কমে, যোগাযোগ বিষয়ক সম্পাদক হাজী রবিউল আউয়াল, শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক অধ্যাপক তরিকুল ইসলাম, সহ-শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক অধ্যাপক মহসিন আলী, তাঁতী বিষয়ক সম্পাদক আলহাজ্ব মনোয়ার হোসেন, সহ তাঁতি বিষয়ক সম্পাদক রফিকুল ইসলাম বাবলু, শিশু বিষয়ক সম্পাদক মীর মমিনুর রহমান সুজন, সম্মানিত সদস্য এ্যাড. আমিরুল ইসলাম, অধ্যাপক শহিদুল ইসলাম, বেগম সেলিনা শহীদ, ব্যারিস্টার রাগিব রউফ চৌধুরী, ফরিদা ইয়াসমিন, আলতাব হোসেন, শহীদ সরকার মঙ্গল, সদস্য কুমকুম রহমান, হারুন-অর-রশীদ, নুরুল ইসলাম আনছার প্রামানিক, সৈয়দ ফাহিম আহমেদ রুমী, আব্দুর রাজ্জাক লেবু, হাফিজুর রহমান খোকন, এস এম ওমর ফারুক, আনিসুর রহমান টোকন, হায়াত আলী, অধ্যাপক ইউসুফ আলী, খলিলুর রহমান, জাহিদুল ইসলাম বিপ্লব, আজিবর রহমান, জাবেদ আলী, সৈয়দ সাফায়েত হোসেন, রহমত আলী রব্বান, সাইফুদ্দিন টুলু, এ্যাড. ফিদা হাসান (লাল), আমিনুল ইসলাম চঞ্চল, সামসুরুল হক লিংকন, রাসেল কবির, খন্দকার আতিকুজ্জামান আলমগীর, খন্দকার মোস্তাফিজুর রহমান তুহিন, রেজাউল করিম মিলন, অধ্যাপক নুরুল ইসলাম আসাদ, গোলাম সরোয়ার মাস্টার, সালেহীন মিয়া, খন্দকার সামসুজ্জোহা লাল্টু, আল কামাল মোস্তফা, আবুল কালাম আজাদ, অধ্যাপক আকমল হোসেন, আব্দুল মজিদ মেম্বার, হাজী মোজাম শেখ, আব্দুর রশিদ, আব্দুল কুদ্দুস, বেগম রোজী খান, আমজাদ হোসেন ডাবলু, গোলাম মোস্তফা, রেজাউল করিম, আমিরুল ইসলাম, অধ্যাপক মাহবুবুর লস্কর, আশরাফুজ্জামান শাহীন, শফি আলম, আব্দুর রব, জাহাঙ্গীর আলম, মমিনুর রহমান, আব্দুল লতিফ লালন, আব্দুল আজিজ, আসাদুজ্জামান আরজু, কাউছার বিশ্বাস, শহিদুল ইসলাম, মিজানুর রহমান, ইছামত জোয়ারদার, এনামুল কবির, শাজাহান আলী মাস্টার, রফিকুল আলম বিশ্বাস, আবুল কালাম আজাদ, এ জেড মুন্সি রশিদ রেজা রাজু, খান খালিদ হোসেন, মোস্তফা শরীফ, তোফাজ্জল হোসেন, নাফিজ আহমেদ খান রাজু, আবু হেনা মোস্তফা সালাম লুলু ও মনিরুজ্জামান কাজল। বিএনপির আগের সিনিয়র নেতারা জানান,তরুনদের বড় পদে দায়িত্ব আসায় কুষ্টিয়া জুড়ে নানা মন্তব্য ও আনন্দের জোয়ার উঠেছে দলের মধ্যে ।

দলটির নতুন কমিটির নেতারা বলছেন, কয়েক বছর ধরে জেলা বিএনপির পূর্ণাঙ্গ কমিটি না হওয়ায় সাংগঠনিক কর্মকাণ্ড স্থবিরতা নেমে আসে। গতকাল বুধবার রাতে আগের কমিটি বাতিল করে পূর্ণাঙ্গ কমিটি অনুমোদন দেয়ায় বিএনপির যেকোনো কর্মসূচিতে গতি পাবে বলে আশা করছেন দলটির নেতারা।

মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর তিন বছর মেয়াদে ১৫১ সদস্যবিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ এই কমিটি দলের নেতৃত্বে গুরুত্বপূর্ণ ও গতিশীল রাজনীতিতে ভূমিকা রাখতে সক্ষম হবে। এদিকে বিএনপির ত্যাগী কিছু নেতা কে এই কমিটিতে না আনায় ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

(Visited 13 times, 1 visits today)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *