মোংলা বন্দরের চেয়ারম্যান হ‌লেন কুমারখালীর একে আজাদ

খুলনার মোংলা বন্দরে নতুন চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেছেন সাবেক নৌ গোয়েন্দা প্রধান রিয়ার অ্যাডমিরাল শেখ আবুল কালাম আজাদ। তিনি রিয়ার অ্যাডমিরাল মোহাম্মদ মোজাম্মেল হকের স্থলাভিষিক্ত হয়েছেন। একে আজাদ এর আগে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের আইন ও গণমাধ্যম শাখার প্রধান হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছেন।

মোংলা বন্দরে নতুন চেয়ারম্যান শেখ আবুল কালাম আজাদ ১৯৬৭ সালের ৩০ এপ্রিল কুষ্টিয়া জেলার কুমারখালী উপজেলার মহেন্দ্রপুর গ্রামে এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবা শেখ ওসমান গনি এবং মাতা খোদেজা বেগম। আজাদের পরিবার ও নিকটাত্মীয়দের মধ্যে অন্তত শতাধিক মুক্তিযোদ্ধা রয়েছেন।

আজাদের বেড়ে ওঠা রাজনৈতিক পরিবারে। তার বাবা শেখ ওসমান গনি এলাকার বিশিষ্ট সমাজকর্মী হিসেবে সুপরিচিত। এছাড়া আজাদ এবং তার অন্য ভাইদের কৃতিত্বপূর্ণ কর্মকাণ্ডের জন্য তার মাতা খোদেজা বেগম একজন রত্নগর্ভা হিসেবেই এলাকায় পরিচিত। আজাদের মামা আব্দুল মান্নান খান কুমারখালী উপজেলা চেয়ারম্যান। এছাড়া তার আত্মীয়স্বজনদের মধ্যে অনেকেই বহুদিন যাবত স্থানীয় নির্বাচনে জিতে এলাকায় প্রতিনিধিত্ব করছেন।

একে আজাদ পাবনা ক্যাডেট কলেজ থেকে পাশ করেন। তিনি ১৯৮৫ সালের জানুয়ারি মাসে নৌবাহিনীতে যোগ দেন। নৌবাহিনীতে যোগ দিয়ে তিনি এক্সিকিউটিভ শাখায় কমিশন লাভ করেন।

বাংলাদেশ নৌবাহিনীর কর্মকর্তা হিসেবে রিয়ার অ্যাডমিরাল শেখ একে আজাদ ন্যাশনাল ডিফেন্স কলেজ থেকে এনডিসি কোর্স সম্পন্ন করেন। তিনি দেশ ছাড়িয়ে বিদেশেও কৃতিত্বের স্বাক্ষর রেখেছেন। একে আজাদ যুক্তরাজ্যের ব্রিটানিয়া রয়্যাল নেভাল কলেজ থেকে আন্তর্জাতিক সাব লেফটেন্যান্ট কোর্স সম্পন্ন করেন। এছাড়া তিনি লন্ডনের রয়্যাল নেভাল কলেজ থেকে প্রাথমিক স্টাফ কোর্স, তুরস্ক থেকে তুর্কি ভাষা কোর্স ও গানারী স্পেশালাইজেশন কোর্স, ভারত থেকে ইন্টারন্যাশনাল হিউমেনিটেরিয়ান ‘ল’ কোর্স, যুক্তরাষ্ট্র হতে এক্সিকিউটিভ ডিসিশন মেকিং কোর্সও সম্পন্ন করেছেন।

রিয়ার অ্যাডমিরাল শেখ একে আজাদ ইংরেজি, তুর্কি এবং ফ্রেঞ্চ ভাষায় দক্ষ একজন কর্মকর্তা। তিনি খেলাধুলা এবং অন্যান্য ক্রিয়াকলাপেও খুবই আগ্রহী। অবসরে তিনি গলফ খেলতে ও বই পড়তে ভালবাসেন। ব্যক্তিগত জীবনে তার সহধর্মিণী বেগম নাওমী নাহরীন। তিনি এক পুত্র ও এক কন্যা সন্তানের জনক।

(Visited 54 times, 1 visits today)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *